আজ ৯ চৈত্র ১৪২৩, বৃহস্পতিবার

লজ্জা ২০০০
- তসলিমা নাসরিন---কিছুক্ষণ থাকো

পূর্ণিমাকে ধর্ষণ করছে এগারোটি মুসলমান পুরুষ, ভর দুপুরে।
ধর্ষণ করছে কারণ পূর্ণিমা মেয়েটি হিন্দু।
পূর্ণিমাকে পূর্ণিমার বাড়ির উঠোনে ফেলে ধর্ষণ করছে তারা।
পূর্ণিমার মাকে তারা ঘরের খুঁটিতে বেঁধে রেখেছে,
চোখদুটো খোলা মার, তিনি দেখতে পাচ্ছেন তার কিশোরী কন্যার বিস্ফারিত চোখ,
যন্ত্রণায় কাতর শরীর।
পূর্ণিমার বোনটি উপুড় হয়ে পড়ে আছে মাকে শক্ত করে ধরে।
উঠোনে হুড়োহুড়ি, পূর্ণিমার মা পাথর-কণ্ঠে মিনতি করছেন, বাবারা, এক সাথে না,
একজন একজন কইরা যাও ওর কাছে।
এগারোটি উত্তেজিত পুরুষাঙ্গে তখন ধর্মের নিশান উড়ছে।
পূর্ণিমার কান্না ছাপিয়ে পূর্ণিমার মার, গ্রামের কুলবধূটির তুমুল চিৎকারে তখন দুপুর
দ্বিখণ্ডিত, তিনি ভিক্ষে চাইছেন বাবাদের কাছে, –‘যা করার আমারে করো, ওরে ছাইড়া দেও।’

মুসলমানেরা পূর্ণিমাকে ছেড়ে দেয়নি,
পূর্ণিমার মাকেও দেয়নি,
ছ বছর বয়সী ছোট বোনটিকেও দেয়নি। 
কেন দেবে! সবাই যে ওরা হিন্দু!

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ
মুহা. মোতালেব হোসেন
০৪-০৩-২০১৭ ২১:০২

ব্যথিত এক আত্মা । তবে তসলিমা তোমাকে কিছু বলার ছিলো

ওমায়ের আহমেদ শাওন
২৫-০২-২০১৭ ২১:০৭

যে তার স্ত্রী ব্যতিত অন্য কারো সাথে সেক্স করে কিংবা তোর সাথেও, সে কখনোই মুসলমান নয়.
পতিতাবৃত্তি করে পরিচিতি লাভ করা যায়, জনপ্রিয়তা পাওয়া যায় না.
ইসলামের বিরুদ্ধাচারণ করে মানবতা বিরোধী হওয়া যায়, মানব ধর্ম প্রতিষ্ঠা করা যায়না.