আজ ৩ আশ্বিন ১৪২৬, বুধবার

কথা দিলাম আর কখনো তোমার নামে কোন কবিতা লিখবনা
- আনিসুল হক লিখন

কথা দিলাম আর কখনো তোমার নামে
কোন কবিতা লিখবনা ।
কখনো কেউ জানবেও না
এই তুমি আমার একাংশের চাঁদ
প্রিয়তম ষোল আনা।
ভালো থেকো নিয়ে তোমার অভিমান
আমি ও চলেছি আমার মেঠোপথে
উদাসী সুরে গেয়ে গান।
আজ আর বাঁধা নেই
নেই শাসন বারন
আমিই রাজা আমিই স্বাধীন
ওগো রাবন।
রজকিনীরে কত শখ করে জ্বালালে আলো
কেমন করে ভেঙ্গে দিলি সাজানো ফাগুন
নেভালে প্রদীপগুলো।
এক এক করে সারাটা মন জুড়ে নিয়েছিলে ঠাই
ঝগড়া বিবাদ অনুযোগ অভিযোগ আরো কত বাজাতে প্রিয়তীর সানাই।
কেমন করে দিলে ঠাঁই আমার মনোফুলে অচেনা যাযাবর
কতটুকু প্রেম পেলি ওরে বালুচর।



আমার
বিগত যতো কবিতা আছে এক এক করে
সব কটা নাম নিয়েছি তুলে ।
আমি আমার কথা রেখেছি
তুমি রাখোনি কখনো রাখোনি
কেন রাখোনি তুমি না জানো
আমি তা জানি।

কথা দিলাম আর কখনো বাজবেনা তোমার মোবালের রিংটোন
শুনবেনা কন্ঠ ধ্বনি
যতো পারো সুখো থাকো
আরো সুখে কাটুক দিন রজনী।
অনেক কথা বলার ছিলো অনেক কথা।
ইনিয়ে বিনিয়ে সব কথা
ব্যথা ভরে সাজিয়ে দিলে
সাদা লাল লাল সাদা আর নীলে।

কথা দিলাম আর কখনো তোমার নামে লিখব না শরতের কথা
যতো কথা লিখা আছে নিয়েছি তুলে যতোন করে মাধুরী লতা।

বেনামের দল ছুঁয়ে খোঁজনা কিছু
তুমি যে হিমালয় অনেক উঁচু।

তোমার পদ্মার ঢেউয়ে আমি কিছু না
উপহার সে তো বাসী জল খাবার তাও মিছু না।

কোথাকার কে আমি খেললে পুতুল খেলা
বুঝেছি অতপর আমি লখাই তুমি নও বেহুলা।
কথা দিলাম তোমার নামে মাতালের আঙ্গিনায়
আর কোন শিউলি ফুটবেনা
যদিও ফুটে গাঁজার গন্ধে দূরে ঠেলে দেবো
পাশা খেলা আর কভু জুটবেনা।
যা ছিলো আমার নিলে সব কেড়ে
বিষাদ যাতনা আজ কাঁদে পথপাড়ে।
তুমি শুধু রেখো কথা
যদি পারো
কোন সরলের বুকে মেরোনা চাকু
হয়োনা এতোটা উতাল সেজোনা ডাকু।
দূস্য রানী ফুলন দেবী তার ও হয়েছে পতন
তোমাদের অহমিকা স্বর্ণ সম
কোটি পুরুষের প্রিয় ভূষণ।

কত গান রচেছিলে কত সুর ধরে
সব গান ঝরে গেলো বিলাসের ঝড়ে ।
ধুমড়ে মুছড়ে গলাটিপে করলে দাফন
থাকো সুখে খুব সুখে প্রেমের দাদন।

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ