আজ ৭ শ্রাবণ ১৪২৬, সোমবার

জীবন ও সম্পর্ক
- রবিন - ষোড়শী কাব্যমালা

ছিন্নবাসী দ্বীপের মতন, দিন বেড়ে যায়
সঙ্গীহীন সময়ের তিক্ত নিঝুম অধ্যায়।
রূপে অঙ্গ বিমোহিত, ওই অটল পাহাড়
সম্পর্কের অনিবার তৃষ্ণা, জুড়ি মিলা ভার!
সুবিশাল মৌনতা ভেঙে পাহাড়ের কান্না,
ঝিরিঝিরি নীরব বারতা, ঝরে যায় ঝর্ণা
ঝিরি হতে কলকল ছড়া, ছড়া হতে নদী—
স্রোতস্বিনীর সমুদ্র যাত্রা বহে নিরবধি।
বন্ধুবর সমুদ্দুর করে ব্যাঘ্র আর্তনাদ—
ছিন্নতা ঘুচানোর প্রয়াস, মৌন প্রতিবাদ।

বন্ধুতার সেতু গড়ি সহী শুদ্ধাচারী স্রোতে
কেমনে সাধিব মিছে বাঁধ বহতা নদীতে!
অনীহা দেয়ালে ঘিরে চাই না ছিটমহল
পত্র-পল্লবে শোভিত হোক সম্পর্ক রসাল।
দুঃখ-সুখে বুনি মায়াজাল, শতধা সুন্দরী—
সতত উপভোগ্য জীবন, সম্পর্ক আচরি।


পতেঙ্গা, মঙ্গলবার
২১ নভেম্বর, ২০১৭ ইং।

#কবিতা_রবিন

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ
রবিন
২৫-১১-২০১৭ ২১:৫৭

যথার্থ ষোড়শী কবিতা!

১০ পদ + ৬ পদ = ১৬ পদ প্রতিটি চরণে

এভাবেই ১০ চরণ + ৬ চরণ = সর্বমোট ১৬ চরেণর (লাইন) কবিতা

প্রথম ১০ চরণে উপস্থাপনা, শেষ ৬ চরণে নিবেদন, এভাবেই হলো এই ষোড়শীর স্থাপত্য নকশা