আজ ২৯ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, বৃহস্পতিবার

"ইরানী পল্লীবালিকা"
- Md. Osmangani shuvo

চৈত্রের প্রখর রৌদ্দুর যখন পৃথিবীতে
খরস্রোত নির্ঝরিণী যখন পথ চলতে ভুলে গেছে
ঠিক তখনি ধরণীর বক্ষে আগমণ ঘটে
এক রহস্যময়ী চাতকিনী ইরানী পল্লীবালিকার।

মাদলের তালে তালে যখনি তার চরণ চলে
অজ গাঁয়ের রাখাল ছেলে তখনি তাঁর মন ভোলে।
ধরার বুকে নেমে আসে সহসা ভালবাসার বৃষ্টি
পদ্মপাতার নীর কেঁপে কেঁপে ওঠে ভালবাসা হয় সৃষ্টি।

তমিস্রা নিশীথিনীর বুকে ভর দিয়ে চলে আগামীর অধরা স্বপ্ন
প্রদোষে সূর্য আলো দিচ্ছে হয়ে আছে সম্পূর্ণ নগ্ন।
সময়ের যাতাকলে পিষ্ট যখন নিষ্ঠুর মানবজীবন
দিবস রজনীতে ভুল করে দেখি ভালবাসার স্বপন।

চৈত্রে স্রোতস্বিনী যখন সলিলের অভাবে খাঁ খাঁ করছে
উদাস রাখালছেলের ভালবাসার তটিনী যখন ভরপুর,
কঠিন সত্য যখন লোচন ভেদ করে আসে সম্মুখে,
সহজ আবেগগুলো মিলিয়ে গিয়ে ভালবাসা দেয় রুখে।

কোটি কোটি বছর পর আসেন যেন ধরণীতলে
অনিন্দ্য সুন্দর ইরানী পল্লীবালিকা
বসুন্ধরার মানুষ তখন নেত্র শান্ত করবে
বলবে -আমরাও যদি হতাম তার মতো রহস্যময়ী
মরুচারিকা!

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ