আজ ৪ আষাঢ় ১৪২৬, সোমবার

অসংযোগে.....
- আকছার মুহাম্মদ - নিরাশ্রয় পাঁচটি আঙুল

অদৃশ্য ঈশারায় মন কাননের সব সুর -
বিস্তৃত দিগন্ত, কোলে করে ফেরি করা সুখ,
পত্রিকার নিখোঁজ বিজ্ঞপ্তিতে আজ দাঁড়িয়ে।

চলনবলন আর কামুকী আশ্রিত তান্ডবে
মনের কোণে গেতে যেত, দানা বাধত এক মুঠো পঙক্তি,
সাদা এপ্রোন ভেসে যে'তো আধিখ্যেতায়
ঠোঁট মুখ, বাঁকা চোখ, চোখে-চোখ, স্পর্শ কাতরে
বুকের বাম পাশে দিগন্তের সূর্যি উঠার ক্ষণ মুহুর্ত-
বিশালতার গর্ত খুড়ে আযানে হতো মুখর।

উর্ধ্ব আকাশে হেলে পড়া চাঁদের পুর্ন হাসি,
ঝিকিমিকি তারার আলোকরশ্মি, ঝর্নার অবিরাম ধারা----
ময়ূরের ঝুমকো ঝুমুর নাচ,নদীর বয়ে চলা সমুদ্রের টান , কুমারীর পোর খাওয়া কোমরের খাজ কিংবা কাংখিত রাতের ছায়ানট-----

গত হল, শত ছলে আজ নেই কিছু গতরে ।

দেখাচ্ছলে, খেলাচ্ছলে পিছুপিছু ছুটতাম
খুঁজতাম বর্নমালার কয়েকটি শব্দকোষ, শব্দাংশ,
উপমা বাচক ছন্দের তালে গড়িয়ে পড়ে মস্তক
তোমার পায়ে, ছাঁয়ায় কোলে , তলে,নলে ...
কি বেহায়া ছিলাম, বুঝো!

ইতিহাস শেষে বিপরীত পরিণয়, চরমপন্থি
স্বকীয় আয়েসে কমরেড লাল পতাকা ব্যবধানে
দেখলেই মুখ ফেরাই অসীম সাহসে।

বিদ্রোহানল জ্বলে, কলমের কালি অগ্রণী বনে।

সেই ভেজা ঠোঁটের গায়ে আজ কালো পোকা বসেছে, গা'য়ে বসেছে ছত্রাক নামক পাপাচার
চুষে আহরণ করছে আমার জমানো স্বাদ
---- স্বপ্ন, পার্থিব গোস্তের অনাচার।

অযাচিত খাল খননে শোভিত বর্ধন আজ
বিরামহীন আমোদপ্রমোদে।

আমি লিখতে চাই, তোমাকে - পারিনা
ছুঁতে চাই, তোমাকে -- পারিনা
পারিনা, ফুলেল শামিয়ানায় এক হয়ে, এককালের জৈবিক খাদক হতে - পারিনা, পারিনা ---

অঙ্গহানি ঘটেছে , পতনের কীট তরঙ্গে
স্মারক স্বপ্নে নিরাকার জৌলুশহীন অন্ডকোষ,
চিটি পত্তর বুঝে গেছে, নেই প্রেরক প্রাপকের বন্ধন।

সে এখন মুক্ত স্বাধীন নেই সিমান্তে কাঁটাতার।

সেদিনের ভোরের পুকুর আজও পাশে বসে
আজো ভেজা সুখেরকাঁটা, শুদ্ধ স্নানে
সেই আগের মতো ......।

কবে আসবে আমার প্রতিকর্তা বাঁদী?

গণবিক্ষোভ রাজ্য জুড়ে---অসংযোগে ;
একলা পথে অন্তীম শয়নে - কবরে।

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ