আজ ৬ ভাদ্র ১৪২৬, বৃহস্পতিবার

আমাদের গল্প
- নিগার সুলতানা রুমি

কিছু মানুষ থাকে নিভৃতের,খুব নীরবে
বুকের ভেতর উত্তাল ঢেউ তুলে যায়।

তোমার দেয়া প্রথম উপহার,কবিতাসমগ্র
সুকান্তের,বই আমার বরাবরই প্রিয়;
কিন্তু তোমার উপহার দেবার গল্পটা,
আজও মনে পড়লে হাসি পায়!
বুঝলে, গতকাল মার্কেটে গিয়েছিলাম,
এই টুকিটাকি জিনিসপত্র কিনতে আর কি!
হঠাৎ আমার বন্ধু সুকান্তের সাথে দেখা;
আরে! সুকান্তকে চেনো না,ওই যে ওই সুকান্ত।
আচ্ছা থাক,তারপর কী হলো?
তো,কিছুক্ষন ঘুরাঘুরি করলাম একসাথে
তারপর হুড়মুড়িয়ে নামল বৃষ্টি,
সে যে কী তুমুল বর্ষন,ভিজে একাকার
বাধ্য হয়ে একটা ছাতাই কিনে ফেললাম,
তারপর দু'জনে ছাতা নিয়ে গুটিসুটি
মেরে বাসার পথ ধরলাম, বেশ ভিজেও
গেছিলাম কাল বুঝলে,তাও এই শীতের বৃষ্টিতে।।
ওমা!একটু পরেই দেখি তোমার হাতে সুকান্তের বই,
সাথে গতকালের সদ্য কেনা সেই ছাতাটাও!
তখনই বুঝলাম তোমার বন্ধু সুকান্তকে
কেনো চিনতে পারিনি,আর তোমার ওখানে
হঠাৎ বৃষ্টিই বা কেন এসেছিলো অসময়ে!
আমাদের প্রথম দেখা! ট্রেনের কামরায়,
ঠিক যেন 'হঠাৎ দেখা' কবিতার দৃশ্যপট!
তারপর আবার দেখা,বছর দু'য়েক বাদে
লাল চুড়ি,খোঁপার কাটা আর একরাশ মুগ্ধতার
একটা দিন, আমাদের ভালোলাগার।

এভাবেই যেন কখন নিভৃতের তুমি চুপচাপ
শান্ত নদীর মত আপন মনে বয়ে যাও!
গল্পটা আমাদের হতে পারত,অথবা পারত না
এসবের দোলাচলে দুলতে দুলতে কখন যেন
চুপিসারে গল্পটা আমাদেরই হয়ে গেছে!!

৩০/০৭/২০১৮

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ