আজ ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, সোমবার

আমার নীলাম্বরী
- ফয়জুর রহমান সজীব - স্বপ্ন ও ভালোবাসা

একদিন জানতে পারলাম-
বেদনার নাকি নীল রঙ,
তবুও নীল একটা রঙ,
সাগরের নীল আমার ভালো লাগে,
উদারতার নীল আকাশ আমার ভালো লাগে,
সবখানে নীলের জয়ধ্বনি
নীল রঙের বেশ চাহিদা।।

বাড়ি ছাড়লাম এক নীল সুখ খুঁজতে
সেই নীল রঙের ওড়না পড়া,
ভাবনার সেই নীল লতিকা
নীলাম্বরী।
খুঁজে ফিরে ক্লান্ত অবয়ব
পদদলিত স্বপ্নের ইতি টানতে
চলে যায় সেই উদাস মরুভূমি পানে।

কিছুদিন থেকে তাকে খুব ভাবা হচ্ছে,
একদিন দেখা হয়েই গেলো এক মার্কেটে,
মনের চোখ দিয়ে দেখলাম তাকে,
ঘুরে তাকালো আমার দিকে,
বেশ অপূর্ব লাগছিলো তাকে।।
কারণ সেদিন সে পড়েছিলো
নীল শাড়ি,
নীল চুড়ি,
এলো চুল
বেশ অপরুপ লাগছিলো তাকে।
এযেনো নীল নিয়ে নেমে আসা
এক নীল পরী
আমার নীলাম্বরী।
সে একটা মুচকি হাসি দিলো
ঠোঁটের হাসিতে এতোটাই মুগ্ধ চিলাম যে,
সেখানেও নীলের তীব্র ছাপ চোখে পড়ছিলো।

ভাবতেই দেখি সে চলে গেলো,
আমি অনুসরণ করছি,
কিন্তু এক দাদুর পাজরের সাথে ধাক্কায়
ভিড়ে মিলিয়ে গেলো সে।
এখন
ভাবি আবার কবে দেখা হবে সেই নীলাম্বরীর।

সে এখন কল্পনায় হাঁটছে আমার সামনে
আমি খেয়াল করলাম তার গালে টোল পড়ছে,
বেশ অদ্ভুদ বাস্তবে সেটা খেয়াল করা হয়নি
আসলে নীলে আমার চোখ আটকে যায়,
তাই এমন হয়েছে
নিতে পারছিলাম না।
ভাবতেই একটু অশ্রুশিক্ত হচ্ছিলো চোখ
মনে হচ্ছিলো যদি নীলাম্বরী কাঁদে কেমন হবে?
নীলের সাথে চোখের পানি কি বৃষ্টির মতো লাগবে?
নাহ, আমার সেই সৌন্দর্য দেখার ইচ্ছে হচ্ছে না
কেননা তার চোখের জলটাই হয়তো নিতে পারবো না।

এতক্ষণ নীল পাঞ্জাবি পড়ে ছিলাম
আলমারিতে আদরে গুছিয়ে রাখব ভাবছি,
এরপর কখনো কি দেখা হবে তার?
হলে আমি তাকে থামিয়ে-
নীল পাঞ্জাবি পড়ে তার সাথে হাঁটবো।

বেশ বেমানান লাগবে।
তবুও পড়বো
নীলাম্বরীর সাথে নীলাম্বর না হলেও
হেঁটে চলার নীল সাথি হিসেবে খুব খারাপ লাগবে না আমাকে।

আচ্ছা তার নীল পছন্দ না হলে কি অন্য নামে ডাকবো??
লাল হলে লালাম্বরী?
নাহ। মানাচ্ছেনা।
এটাই রাখবো ভাবছি
পছন্দ যাই হোক।

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ