আজ ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, মঙ্গলবার

বাবা ও আমি
- মামুনুল হক - সোনালি অতীত

পূর্বের মত একটু তারুণ্য দীপ্ত হয়ে যাও, বাবা!
আগের মত আমাকে চুল টেনে দিতে বল, বাবা!
হাত-পা দ্বয়ের আঙ্গুল ফুটাতে বল না, বাবা!
তোমার পবিত্র গায়ে ভালবাসা মিশ্রিত হস্তদ্বয়
আলতো করে বুলিয়ে দিতে বল না, বাবা?
পূর্বে বললেও এখন বল না কেন, বাবা?

আমি কি খুব বড় হয়ে গেছি, বাবা?
তোমার চোখে এ আমি কি আর খোকা নেই?
প্রশ্ন করতে বড্ড ইচ্ছে করে কিন্তু সাহস হয় না!
কিন্তু আমিতো খোকা হয়ে থাকতে চাই, বাবা!
লোহা হয়ে থাকতে চাই তোমার চুম্বক হাতে!

মস্ত বড় হতে চাইনি যতটুকু তোমার অক্ষিপটে!
সে বড়ত্ব আমি চাই না যে বড়ত্ব কাঁচ হয়ে যায়-
বাপ-ছেলের মাঝে বিচ্ছেদের সুরে!
পূর্বের মত একটু তারুণ্য দীপ্ত হয়ে যাও, বাবা!

যৌবনদীপ্ত বাবা, আবার ফিরে আস একবার;
বার্ধক্যে সুপ্ত টগবগে যুবক,আবার ফিরে আস!
মাথার চুল বড় হয়ে গেছে;সেলুনে নিয়ে যাও;
আর বল যেন একদম ছোট্ট করে কেটে দেয়!
বর্ষায় পুকুরে আর গ্রীষ্মে কলের দুয়ারে তোমার-
পাগলটাকে আরেকবার গোসল করিয়ে দাও!
ঘোড়া খেল কার্পেট মেঝেতে ঠিক আগের মত।
ডাইনিংয়ে বসে মুখে লোকমা তুলে দাও!
মাছের অর্ধাংশ খাইয়ে দাও চুপিসারে ;
আর বল,"সব খেয়ে ফেললি তুই!"

পূর্বের মত একটু তারুণ্য দীপ্ত হয়ে যাও, বাবা!
শক্ত করে হস্ত ধরে বেরিয়ে যাও পড়ন্ত বেলায়!
আর ছায়া হয়ে বসে থেক মাঠের এক কোনায় !
ভীতসন্ত্রস্ত মনে উপভোগ কর দুষ্টু ছেলের ফুটবল!

পূর্বের মত নীরসে কিছু টাকা জমাও না, বাবা!
রমজান তো এসেই গেল, শপিং করতে হবে না?
তোমার তিল তিল করে জমানো অর্থে-
শার্ট-প্যান্ট আর নতুন জুতো কিনতে হবে!
পূর্বের মত একটু তারুণ্য দীপ্ত হয়ে যাও, বাবা!

পিতারা যেমনি সন্তানের বার্ধক্য দর্শন করতে চায় না,
সুসন্তানরা তেমনি বাবার বার্ধক্য প্রত্যাশা করে না।
তাই পিতৃ ভক্তি আর সন্তান চ্যুতির বিজয় হোক!

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ
মামুনুল হক
০৯-০৬-২০২০ ০০:০৯

বাবাকে অনেক ভালবাসি।

মামুনুল হক
১০-০৬-২০২০ ১৩:৩০

আমি বাবাকে বৃদ্ধ হিসেবে দেখতে চাই না। সজীব এবং প্রাণসঞ্চল টগবগে যুবক হিসেবে দেখতে চাই।