অমর একুশে
- মুহাম্মদ আস্রাফুল আলম সোহেল ২৪-০৭-২০২৪

একুশ মানে—
মাথা নত না করা ।
শোষণ, বঞ্চনা, নিপীড়ন এবং অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা ।
মায়ের ভাষা বাংলায় কথা বলা ।
রফিক, সালাম, শফিউর, বরকত, জব্বার, রামেশ্বর, অহিউল্লাহ, সিরাজুদ্দিন এবং আবদুল আউয়ালসহ অন্যরা ।
অমর এক শোকগাথা ।
স্বজন হারানো বেদনা!
আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি ।
অ- আ- ই- ক- খ- গ ইত্যাদি বর্ণমালা ।
তাজা রক্তে রাঙানো ৫২’র মহান ভাস্বর এক অবিস্মরণীয় দিন ।
রাষ্ট্রভাষা বাংলার অধিকার প্রতিষ্ঠা ।
আত্মোৎসর্গকারীদের রক্তে গড়া শহীদ মিনার ।
স্পর্শানুভূতি, ভালোবাসা, কৃতজ্ঞতা এবং বিনম্র শ্রদ্ধাবনত শির ।
নগ্ন পদে শহীদ বেদীতে মহান ভাষা বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ ।
আত্ম অধিকার জাগ্রত করা ।
রৌদ্রদগ্ধ চেতনাকে শাণিত করা ।
জেগে ওঠার প্রেরণা ।
স্বাধীনতার বীজ বপন করা ।
বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে হাজার বছরের পরাধীনতার শৃঙ্খল ছিন্ন করা ।
বাঙালির কপাল জুড়ে মহান মুক্তিযুদ্ধের রক্ত-জয়টিকা ।
মহা আত্মত্যাগে অর্জিত ভাষাভিত্তিক স্বাধীন-সার্বভৌম জাতিরাষ্ট্র বাংলাদেশের অভ্যুদয় ।
অর্ধনমিত জাতীয় পতাকা ।
মহান ভাষা বীর শহীদদের স্মরণে ‘একুশে গ্রন্থমেলা’ ।
ধানমন্ডির রবীন্দ্র সরোবরে উন্মুক্ত মঞ্চ ।
স্মৃতিচারণ- প্রদীপ জ্বালানো- আলপণা আঁকা- কালো ব্যাজ ধারণ- প্রভাতফেরি- পুষ্পাঞ্জলি- স্বরচিত কবিতা- আবৃত্তি- আলোচনাসভা- ক্রোড়পত্র- সঙ্গীত- নৃত্য- নাটক- চলচ্চিত্র ইত্যাদি পরিবেশন ।
বাংলা ভাষার গৌরবগাথা ।
চেতনার প্রতীক, অনুপ্রেরণা আর স্পর্ধিত অহংকার ।
আমাদের প্রাণের স্পন্দন ।

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ

এখানে এপর্যন্ত 0টি মন্তব্য এসেছে।