একাকী সৈকতে
- মুহাম্মদ আস্রাফুল আলম সোহেল ২৪-০৭-২০২৪

নিরব– মানবহীন সৈকত ।
আমি একাকী ।
মৃদু বাতাসের স্পর্শে শিহরিত ।
পরিশুদ্ধ মন আগামীর স্বপ্ন আঁকে ।
অপ্রত্যাশিত পদার্পণ ভীত শামুককে থমকে দেয় ।
এ যেন তাঁর স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ ।
নিজেকে আত্মরক্ষা করতে বাধ্য হয় খোলসের ভিতর ।
প্রকৃতপক্ষে, এ অনৈতিক কৃতকর্মে অপরাধ এবং অনুশোচনার দাবী রাখে ।
রোদের আলো তপ্ত বালুকণায় মুক্তা জ্বলে ।
লাল কাঁকড়ার দিক বিদিক পথচলা ।
হতে পারে, ওদের জীবন সংগ্রাম ।
না হয় কোন উৎসব কিংবা স্বজন হারানো আর্তনাদ ।
অথবা, প্রেয়সীর প্রতীক্ষা ।
কে জানে?
না- কি, শিকারী চিল থেকে বেঁচে থাকার আপ্রাণ চেষ্টা ।
সুনীল আকাশে সাদা মেঘ পাল্লা দিয়ে চলে অজানা গন্তব্যে ।
চলার পথে ছায়া দেয় অন্তহীন মহাসমুদ্রকে ।
হয়তো লাজুক হাসে সমুদ্র ।
দিগন্ত সেজেছে নববধূ রঙধনুর রঙে ।
হঠাৎ দমকা হাওয়ায় ধনুক বাঁকে ঝাউগাছ ।
দিক ভ্রান্ত শঙ্খচিল উড়ে যায় ।
হেঁটে চলা পায়ের ছাপ ঢেকে দেয় উদ্দাম বালুঝড় ।
পুব আকাশের কপালে কৃষ্ণবর্ণ তিলক ।
তীব্র গতিতে ধেয়ে আসা উত্তাল ঢেউগুলি বিধ্বস্ত হয় তীরে ।
যেন অবিরাম মাতাল নৃত্য করছে তীরের বুকে ।
বাস্তুচ্যুত লতা, গুল্ম, বালুকণা আর তীরের আর্তনাদ কান পেঁতে শুনি ।
কিন্তু জানিনা, এটি কি প্রকৃতির বিচার– না অবিচার ।
সমুদ্রের গর্জন আমাকে কাঁপিয়ে তোলে ।
ওর অপরিমেয় ক্ষমতায় স্তম্ভিত, ভয়ার্ত ।
বিষন্ন মনে দাঁড়িয়ে থাকি ।
দীর্ঘশ্বাস নেই!
এক সময় ফিরে আসি ।
অজনা রহস্যে ঘেরা প্রকৃতির এ অপরূপ সৌন্দর্য এখনও কাছে টানে ।।

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ

এখানে এপর্যন্ত 0টি মন্তব্য এসেছে।