কবিতার সাথে
- মিহির শুভ ২৫-০২-২০২৪


কতো শব্দের দেয়াল গাঁথলে বলো, কবিতারা ঘর বাঁধে?
কতো আবেগের বাহারি মসলা মেশালে কবিতা হয় উপাদেয়?
ভাবের কতো গহিন গভীরে ডুবলে কবিতার হয় পূর্ণস্নান?
স্রষ্টার আকাশ হতে বৃষ্টির মতো এতো যে শব্দজল ঝরে গেল
তার আতরজলে ভিজে ভেতরে ভেতরে কে হয়েছে তুমুল প্রেমাদ্র?
কার শ্বেত-শুভ্র উর্বর বুকের উঠানে কবিতা বুনেছে প্রণয়ের তীব্র বীজ?
কবিতা যে দেহের আক্ষাংশ-দ্রাঘিমাংশ মেপেছে নির্ভুল
তার লিকলিকে দেহকায়া স্বর্ণলতার মতো কার বুকে গড়েছে অপার আশ্রয়?
কার আঁচলের ফুল খসে গেছে বলে শ্রাবণ রাতের ন্যায় কবিতা কেঁদেছে অবিরাম?

কবিতা কোন পাষণ্ডের কুৎসিত মুখে করেছে তীব্র চপটাঘাত?
কোন পাপিষ্টের বক্র পিঠে করেছ কঠিন কঠোর চাবুকাঘাত?
যুগে যুগে কবিতা ছুড়েছে অবিচারের বিরুদ্ধে হুঙ্কার, শোষকের বিরুদ্ধে ছুড়েছে শব্দ মিসাইল।
কবিতার সাথে যার হয়েছে গাটছাড়া
এক জীবনে সে পেয়েছে বিপুল প্রাণের তুমুল উচ্ছ্বাস।

কবিতা যার হাতে এঁকে দিয়েছে মেহেদীর বিমূর্ত রেখাচিত্র
যার দীঘল চোখের ভ্রুতে লেপ্টে দিয়েছে ভালোবাসার নিকষিত কাজল।
কোন নির্জন দ্বীপে কবিতার সাথেই গড়ে ওঠে তার নৈঃশব্দ্যের সংসার।
বিষের পেয়ালা হাতে দাঁড়িয়ে ছিল যে আদম সন্তান, সেও ফিরে এসেছে কেবল কবিতায় মগ্ন হবে বলে
কতো ছন্নাছাড়া সবশেষে কবিতায় গড়েছে সুখের সদন।

কবিতা কারও প্রিয়তম কমল, কবিতা কারও তৃষ্ণার জল
কবিতা কারও বেঁচে থাকার বিশুদ্ধ অক্সিজেন!
এক জীবনে, স্বেচ্ছায় সজ্ঞানে কবিতার সাথে গড়েছি অটল বন্ধন।

চট্টগ্রাম, ১২-১১-২০২০

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ

এখানে এপর্যন্ত 0টি মন্তব্য এসেছে।