আজ ২২ আষাঢ় ১৪২৭, মঙ্গলবার

রাত
- তসলিমা নাসরিন---কিছুক্ষণ থাকো

কত কত রাত কেটে যাচ্ছে একা বিছানায়,
রাতগুলো ঘুমিয়ে, না ঘুমিয়ে, একা
স্বপ্নে, না স্বপ্নে, একা
একাকীত্বে একা
পিপাসায় তৃষ্ণায়
বিছানার এক কিনারে আমি, বাকিটা ফাঁকা, অসভ্যের মত ফাঁকা।
তাকে পেতে ইচ্ছে করে আমার, আমার বাঁ পাশে, আমার ডানে,
আমার ওপরে, আমার নীচে।

একজনকে এনে মনে মনে আমি শুইয়ে দিই বিছানায়
সে আমাকে চুমু খায়, চুল থেকে পায়ের নখ অবদি ভিজিয়ে ফেলে
সে আমাকে নগ্ন করে, ভালোবাসে
সারারাত ভালোবাসে,
সারারাত সাত আকাশে উড়ে বেড়ায়, ঘুড়ি ওড়ায়,
সারারাত আমি শীর্ষসুখে মরি–
এরকম রাত কাটে আমার, মনে মনের রাত কাটে।

রাতগুলো ফুরিয়ে যাচ্ছে দিন দিন, রাতগুলো নিভে যাচ্ছে
তাকে হয়ত পাবো একদিন, একদিন পাবো তাকে, শুধু রাতগুলোকেই পাবো না।

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ
সৌরভ সৈকত
২৪-০৬-২০২০ ০৪:২৯

একজন নারী বিছানায় একা,
খুজছে সঙ্গি, তাতে বলিবার কিছু নাই।
সে যদি হয়, তার স্বামী
কিংবা এক ভালোবাসার লোক,
আমি তাকে বলিবনা ভোগ,
বলিবনা হয়েছে রোগ
এটা তার অধিকার।

কিন্তু যদি একজনকে এনে,
মনে মনে প্রতিক্ষনে,
শুইয়ে তার দেয় বিছানায়।

নিতে চায় নিত্য নতুন সুখ,
অসভ্যের ডানা মেলে,
উড়ে সাত আকাশে...।
সে তো নারী নয়,
নয় কোন বেশ্যা!

একজন বেশ্যা,
যাকে দাও তুমি গালি
দেখেছো কি কখনো,
ঘুরে তার মনের অলি গলি।
বিছানায় উঠে যতো নৃত্য
ফুটে কলা-কৌশলের চিত্র।
নয় সেটা তার ইচ্ছে,
পাপী নর, পাপীয়ারা,
কেড়ে নিয়ে তার হিয়া,
কিছু লোকের আসমানে সুখ তুলে দিচ্ছে।

তবু তুলে দিয়ে, খুলে দেহ, নীচুরা দেখেনা কেহ
আছে তবু সে নাই, যে মেতেছে কামনায়
বন শুয়ারের মতো।

তবু সেই নারী বিছানায়,
নিচু পুরুষের কামনায়,
পুতুলের মতো শুয়ে,
চোখের পানিতে নেয় ধুয়ে,
বিধাতার দেওয়া পাপ।
মনের কোনেতে তখন,
তাসলিমার নাসরিনের মতোন,
আসেনা বহুজন, আসে একজন,
ভাবে এটা বিধাতার অভিশাপ।