আজ ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, সোমবার

প্রতিশ্রুতি
- রাসেল রুশো - ফিনিক্স

বসন্ত এসেছে আজ তোমার রাজ্যে;
ভোর হতে চারদিক হয়ে উঠবে প্রাণবন্ত;
কৃষ্ণচূড়া আর শিমুল ফুলে কুঁড়ি জাগবে,
প্রতি মোড়ে মোড়ে বাজবে বসন্ত বরণের গান;
কিংবা ট্রেনের বগিতে বগিতে জাগবে ফাল্গুনী সুর;
বাতাস সে সুরের আওয়াজ ছড়িয়ে দিবে দিক্বিদিক।

এ বসন্তে আমি কিছু দিতে পারিনি নতুন,
কিংবা দেয়ার মতো কিছু নেই আমার।
একটি প্রশান্ত রাত দিতে পারতাম তোমায়
কিংবা নিশ্চিন্ত একটা ঘুমের রাজ্য দিতে পারতাম।
হেলেন কিংবা ওফেলিয়াদের মতো তোমার রাজ্য নয়,
তোমার শহরগুলো গড়ে উঠছে এখনো।

তোমার এলো চুলে বসন্ত হাওয়া লাগবে আজ;
ভাটিকা শ্যাম্পুর স্নিগ্ধ কোমল ঘ্রাণ ছড়াবে বাতাসে।
কিংবা নয়তলা বাড়িটির ছাদে উঠে চোখ চলবে আকাশে,
সারা শহরে মাতামাতি লাগবে এ নিয়ে।
আমি কিছু দিতে পারলে তোমার দিনটা ভালো কাটতো;
কিংবা সখিদের কাছে তুমি উৎফুল্লতা দেখাতে পারতে।

শুনেছি সামাজিক সাইটে অভিনন্দন বার্তা জমছে,
আমি তাও দিতে পারিনি তোমায়।
কি করে দিবো বলো!
আমি ভুলে গেছি জীবনের প্রশান্তকণ্ঠ ;
কিংবা নিজেকে সিসিফাসের মতো মনে হয়।
এ বসন্তোৎসবেরর দিনেও নিশ্চিত শাস্তি ভোগ করছি;
নিশ্চয়তার আভাস কখনো পাওয়ার প্রতিশ্রুতি পাইনি,
তা ঠিক; তবে দুঃশ্চিন্তার এতো কর্কশতা শুনতে চাইনি আমি।
তোমার সন্তানাদি আমারই ধারায় বাড়ছে,
সবুজে বেঁচেও তারা নীলাবরণ দেহ-মনে গোঙ্গাচ্ছে।
আমি চাই তোমার জন্য নিশ্চয়তার প্রতিশ্রুতি নিয়ে কেউ আসুক,
কিংবা আমি তোমার অনিশ্চয়তা মুছে দিতে চাই।
ফাল্গুনের হাওয়া তোমার গায়েও লেগেছে,
চা-পানিতে পা ডুবানো অবস্থার স্বস্তিকর নিশ্চয়তা,
কিংবা তোমার ভালোলাগা কোন অনুভবে আশ্বস্ত করতে চাই।

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ