বৎস
- সিফাত মৃধা ২০-০৪-২০২৪

কে তুমি বৎস, ধড়িয়া মৎস;
বেচিয়া গঞ্জে, ফিরিলে আপন কুঞ্জে।
কুঞ্জেতে বাস আপন গৃহিণীর কাছ,
সারাটি রাত্রি জুড়ে আখিতে নাহিক ঘুম তার,
কুঞ্জেতে প্রবেশে জিজ্ঞাসিলেন..
রাত্রি জুড়িয়া কোথায় ছিলে?
বৎস হইলো ভিতুর ডিম-
রাত্রে ধড়ে মাছ,
বলিলেন তিনি, রাত্রি জুড়ে
মাছ ধড়েছি আমি জেলে ভাইদের সাথ।
সকালে উঠিয়া কুঞ্জেতে নাহি ফিরি,
গিয়াছিলাম গঞ্জে বেচিলাম মৎস্য
জুগাইলাম কানা-কড়ি,
কিনে লইলাম শিম আর লাউ।
বৎস আপনার পকেটে দিলো হাত বাহির করিলো,
কাগজে মোড়ানো ফুল - সাথে ছিলো দুল।
পরে তিনি গিন্নির হাতে দিয়া বলিলেন;
গিন্নি এবার ক্ষমা করে দাও, আর করিবো না এমন
পরে গেলে বলে যাবো কোথায় যাচ্ছি আমি,
শেষে গিন্নি তাহারে শাস্তি দিলো
কাল এমন করেছে বলে।
শস্তি অতো কঠিন নহে,
ঘড় করিতে হবে ঠিক;
আজিকে না করিলে সেকাজ
ঘড় ছাড়া হইবে আজ।
বৎস বড়ই ভিতু গিন্নি তার জম,
বাহির হইয়া বৎস ঠিক করিতে লাগিলো ঘড়
ভিতরে গিন্নি ফুল আর দুল পেয়ে বড়ই উৎসাহিত।
উৎফুল্লের সাথে বৎসের গিন্নি লাউ আর শিম;
লয়ে যায় রসাইয়ে দিক,
এই দেখিয়া বৎস এবার মনে মনে ভাবে;
আজিকে নিশ্চয়ই রান্না হইবে লাউ শিমের ঝোল,
কতটা দিন ধড়ে খাইনা পেট ভরে।
সারাটিন দিন যুরে গিন্নি পাক করে
বৎস তার ঘড়টি সারে।
সন্ধ্যাকালে গিন্নি ডাকিছে তারে
জল-খাবারও লাগি,
বৎস বড়ই উৎসাহে গিন্নির তরে ফিরে;
ফিরিয়া দেখে সে ভাবিয়া ছিলো যা হয়েছে তাই,
লাউ শিমের ঝোল দিয়া ভাপ উঠা ভাত খেয়ে
বৎস চলে তার কর্মের দিকে।
পেছন থেকে গিন্নি ডাকিয়া বলে আজিকে কখন?
বৎস বলে জলদি ফিরিবো অপেক্ষা করিয়ো
অবশেষে বৎস ফিরে জেলে ভাইদের তরে।




১২:৩৫ রাত
১৬ই চৈত্র ১৪৩০বঙ্গাব্দ
৩০শে মার্চ ২০২৪ইং

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ

এখানে এপর্যন্ত 1টি মন্তব্য এসেছে।

faizbd1
৩১-০৩-২০২৪ ০১:২৫ মিঃ

বহুত আচ্ছা লিখেছেন বৎস।

সিফাত মৃধা
০৫-০৪-২০২৪ ০১:০৭ মিঃ

ধন্যবাদ কবি