আজ ৬ আশ্বিন ১৪২৬, রবিবার

আজব ঢাকা
- হোসাইন মুহম্মদ কবির

দু চোঁখে স্বপ্ন ছিল রংতুলিতে আঁকা
বড় হোলে যাব আমি রাজধানী ঢাকা,
শুনেছি এ ঢাকায় বেকার কেউ এলে
কোন না কোন সে চাকরি একটা মিলে;

তবে এ শহরে বেঁচে থাকা বড় দায়
কত কথার চাবুক নিত্য পরে গায়,
যে দেখেনি,তাঁকে বুঝানো যে বড় দায়
আধুনিক শহরে বিপদ পায় পায়।

নয়া কেউ এলে ভুলে যায় অলিগলি
কার আবার বদলে যায় কথার বুলী,
ঢাকায় নারী পুরুষ নাই ভেদাবেদ
শার্ট প্রেন্ট কেউ বা পরে করে আমোদ।

ডিজিটাল মেয়েদের আকর্ষণী রূপ
দেখে আমি হতবাক দাঁড়িয়ে নিশ্চুপ ,
তবুও এদের প্রতি প্রেম ভালবাসা
মায়া মমত্ববোধ জাগে না,মনে আশা।

তবে হাসির পাত্র দেখতে লাগে ভেশ
বাহারি সাজ রঙিন রঙিন কেশ,
জিয়া উদ্দান স্মৃতিসৌধ চিড়িয়াখানা
যে যাই কিছু করে,কেউ করে না মানা,

এটা কার কাছে নয়ত আমার শোনা
এ নিজ চোখে দেখা,কী ডাক জাদুসোনা।
টিএসসি,রমনাপার্ক,হাতির ঝিল
প্রেমের বন্ধনে ছেলে মেয়ে কি যে মিল,

না দেখলে এমন কান্ড,যায়না বুঝা
এ যেন দেহের অচেনা সুখ কে খোঁজা ;
নিষ্ঠুরতা পাপ দেখে দিব্যি চেয়ে থাকি
তবুও সুখের কল্পনায় ছবি আঁকি,

অসহায় ঢাকায় নিত্য নতুন শেখা
বহু চেষ্টাতে বদলায়নি ভাগ্য রেখা।
কত দিন হয়নি দ্যাখা গ্রামের মাঠ
পুকুর ভরা মাছ,দূর দূরের হাট,

সারি সারি গাছ,কেন যে এলাম ঢাকা?
কোথাও নেই শহরে এত টুকু ফাকা,
ইট পাথরে ঢাকা,আকাশে উড়ে টাকা
যায় না ধরে রাখা,মানুষ বড় একা।

সবাই,যে যার মত রোজ ব্যস্ত কাজে
বহুরূপী সবে যেন নিজ স্বার্থ খোঁজে,
ভাল মন্দ যায়না বুঝা কথার বাজে
কেউ ডুবে ছলনাময়ী রূপের মাজে;

এই ঢাকাতে সমগ্র'ই পাওয়া যায়
যদি থাকে ধন আর সীমাহীন টাকা,
তবু এ ঢাকা ভীষণ রুক্ষ মনে হয়।
চাইনা থাকতে মমতাহীন এ ঢাকা,
চল্লাম গ্রামে একা,রংধনুতে আঁকা
এই হচ্ছে আমাদের'ই আজব ঢাকা৷

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ