আজ ৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, রবিবার

ফুলতলীর কবিতা
- মাহমুদুল মান্নান তারিফ - নির্বাচিত

শ্রেষ্ঠখাদেম আল কুরআনের
ভারতবর্ষে যিনি
আলেমগণের সূর্য তিনি
ভালো করেই চিনি
সারা জীবন থাকবো আমি
তাঁরই কাছে ঋণী।

বদরপুরীর নয়নমণি
শাহ মাজিদের ফুল
ফুলতলীকে দেয় গালি যে
করলো সেতো ভুল
ভুলকারীরা কেমনে দিবে?
ভুলেরই মাশুল।

প্রাণের মুর্শিদ ফুলতলীকে
যাই যে বেসে ভালো
দূর করেছেন সত্যের আলোয়
হালজামানার কালো
বাতিল যারা তাদের ঘরে
জ্বালাও ন্যায়ের আলো।

নামাজকে বিশুদ্ধ করে
শুদ্ধ-সহীহ পড়া
তাঁর মাধ্যমে শিখতে পারি
শুদ্ধভাবে পড়া।
তার আদর্শে করতে তো চাই
জীবনখানি গড়া।

আল্লাহ পাকের অনুগ্রহ
পীরকে করেন বীর
বাস্তবায়ন গেছেন করে
সুন্নাত নূরনবীর।
হালজামানার শ্রেষ্ঠ ওলী
উচ্চ তাঁরই শির।

তরবারি না মুখের ভাষা
যুদ্ধে যথেষ্ট
ওহাবীদের মোকাবেলায়
ছিলেন সচেষ্ট।
দীন প্রচারে তাঁর অবদান
যুগের শেরেষ্ট।

বিশ্বজুড়ে পরিচিত
রা-ইসুল কুররা
তাঁর পিছনে নিন্দা করে
ওহাবী চোররা!!!
তাঁর আরেকটা লক্বব চেনা
ক্বারীউল কুররা।

ক্বারীই কেবল নয়তো যুগের
শ্রেষ্ঠ মুফাসসির
মুনতাখাবুস সিয়র তাঁরই
লিখিত তাফসির
তীক্ষ্মজ্ঞানে পূর্ণ যে তাঁর
পাগড়ীতে সাফ শির।

তাফসিরেও সীমাবদ্ধ
নয়তো তাঁরই জ্ঞান
হাদিসশাস্ত্রে দার্শনিকও
ফিকহে বিশেষজ্ঞান
সব বিষয়েই ছিল তাঁরই
শক্তিশালী ধ্যান।

ফুলতলীকে করবে নীচু
শক্তি আছে কার?
মুর্শিদ আমার গেছেন পৌঁছে
দরবারে আল্লা'র
কামেল ওলী ছিলেন প্রেমিক
নবী মুস্তাফার।

আল্লাহ ও তাঁর রাসূল যাঁরে
নিলেন আপন করে
তাঁর পিছনে নিন্দা করে
লাভ হবেনা ওরে
তাইলে কেনো ওহাবীরা
ক্ষোভে ফেটে মরে???

রচনাঃ ৬ মার্চ ২০১৭

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ