আজ ৪ আশ্বিন ১৪২৬, শুক্রবার

কালবৈশাখ দেখেছি
- মুজতাহিদ বিল্লাহ্

মধ্যাহ্ন লগনেই নেমেছে সন্ধ্যা
যেন ডুবেছে বেলা,
কালবৈশাখের নিশানা উড়িয়ে
গগনে কালো মেঘের ভেলা।
মাতাল পবনে বৃক্ষ সেজদা সম,
মাঠঘাটে ছুটছে সবাই নিরাপদ আশ্রয়ের ব্যামো।

আমিও ছুটছি, হঠাৎ থমকে গেলাম!
সদ্যপ্রয়াত ছেলের কবরের
পাশে এক বৃদ্ধা মা'কে দেখতে পেলাম।
বৈশাখের ধ্বংস ত্রাস ছাড়িয়ে,
আঁচলের নিচে দু'হাত উঁচিয়ে
বৃদ্ধা মা দাঁড়িয়ে!

গণ্ডবেয়ে অশ্রু ঝরে, ঠোঁটে
থরথর কাঁপন,
খোকারে তেমন করিও যতন
"যখন আমার কোলেতে ছিলো আপন"
হে রহমান রহিম হে দয়াময়,
সোনামানিকরে সর্গ নসিবো
মৃদু সুরে মা কয়।

বৈশাখীঝড় ধ্বংস ত্রাসে গতরে আমি হারি,
মা'ছিলো দাঁড়িয়েই কবরের
পাশে, আমি ভিতুরূপে ফিরি
বাড়ী।
হে খোদা করিও কবুল মায়ের
নয়ন বারি!
মায়ের মনের কালবৈশাখ
শতগুণ যেন ভারী।


(বি.দ্র. কবিতাটি আমার বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকেই। (যদিও কাব্যিক রূপ দিতে একটু গুছিয়ে লেখা)
ঝড়ের দিনে মরহুম আঃখালেক এর কবরের পাশে তার বৃদ্ধা মায়ের আহাজারি দেখেছিলাম, আল্লাহ তা কবুল করুক!
কবিতাটি সেই মা'কে উৎসর্গ করললাম)
স্থান: মনমথ (আদর্শ পাড়া), বামনডাঙ্গা, সুন্দরগঞ্জ, গাইবান্ধা।

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ