আজ ৪ শ্রাবণ ১৪২৬, শুক্রবার

এক পলকের দেখা-১
- সেনাপতি আকাশ - দর্পনের চাঁদ

সেদিন বাহিরে বৃষ্টি আর ক্যানবাসে ছিলাম দাড়িঁয়ে।
এক মেয়ে অপসরা হয়ে হঠাৎ কাছে যেনো এলো এগিয়ে।
তার নেত্রপলকে পলক রেখে আমি মুহূর্তেই নিস্তব্দ হলাম।
তার শরীর ভেঁজা বস্ত্রে আমি যৌবনের নীড় খুজে পেলাম।
তার ঠোটের নীচের তিল যেন আমায় ঈশাঁরা করে বলে।
একা আমি বাচাও আমায় পরেছি লালসার কবলে।তার রেশমি ভেজা চুলগোলো হতে বিন্দু বিন্দু জল পরছে।
যেন তার যৌবনের জোয়ার আমাকে ভাসিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।
তার কোমল হাতটা আমার বুকে রাখা ছিল।বদনের ভেজা বিন্ধুতে যেন আমার দেহ ভিজে গেল।
তার কাজল কালো চোখে ভয়ের যতসব ভাবনা-
তার যোগল নয়ন আমাকে যেন দিচ্ছিল প্রেমের শান্তানা।
তার কোমল দেহ যতবার শ্বাস নিচ্ছিল ততবার আমার বুকে তার কম্পন যেন বিদ্যুৎ বেগে আমাকে বলছিল- আমাকে বাচাও।
কিন্তু হঠাৎ কতগোলো অচেনা লোক-
তাকে আমার কাছ থেকে টেনে তাদের কাদে তুলে নিয়ে চলে যাচ্ছিল।আর তার চিৎকার আমার কানে তরঙ্গাকারে ভেসে আসছিল।
আমিও তাকে বাচাতে তাদের পিছনে ছুটতে লাগলাম সাথে চোখে অশ্রু ঝরছিল।


€রচনাকাল:০৭/০৭/২০১৯

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ