আজ ২ আশ্বিন ১৪২৬, মঙ্গলবার

ধর্ষিতা দেবী
- নাজমুল তালুকদার - আলোকিত জীবনের সন্ধানে

প্রতিদিন পত্রিকায়,
বখাটের হাতে মেয়েটি পরিণত ধর্ষিতায়।
তিন বছরের শিশুটি,
সেও মরেছে হায়! যৌন লিপ্সায়য়।
দৈনিক পত্রিকায়,
ছয় বছরের শিশু ধর্ষণ করল মামায়,
মেয়ের শরীর কেড়ে নিল বাবায়।
ছিঃ ছিঃ ডুবিছে জাতি নির্লজ্জতায়।
আদরের বোনটিও ভাইয়ের কাছে নিরাপদ নয়।
দৈনিক পত্রিকায়,
ধর্ষণের পর প্রান গেল নাহিমার,
ধর্ষিতা জাহিমার লাশ মিলল ডোবায়।
ইজ্জত হারালো চার সন্তানের মায়।
কিন্তু বিচার!!!
তাদের টাকা আছে, ক্ষমতা আছে
বিচার নেই! তারা মুক্ত হাওয়ায়,
ঘুরে বেড়ায় আরেকটা ধর্ষণের আকাঙ্ক্ষায়।



আশি বছরের বৃদ্ধা,
দম আছে নেই।
তাতে কি হয়েছে, এটাই বাংলাদেশ!
ধর্ষণ থেকে মুক্তি নাই,
বেঁচে আছো তো ধর্ষিতা হবাই!!


একি হায়!!
তের বছরের ছেলেটায়,
জেলে যায়, ধর্ষণ মামলায়।
টাকা পঞ্চাশ হাজার!!!
পরদিন মুক্ত বাতাস।
মুক্তি পায় সে, মুক্তি পায়।
হায়!!!একি অন্যায়!
দেশের আইন আজ কই?
টাকার কাছে বিক্রি হয়!!!
নাকি জাতি গোল্লায় যায়??




নিরানন্দ, নির্জীব, ধর্ষিতা
প্রান বাচিয়ে, পুলিশের আশ্রয়।
একটু বাকি ছিল ধর্ষণের
পুলিশ তাও পুরন করে দেয়।
দেশের একি অবস্থা হায়!!!


স্বার্থান্বেষী সরকার!!বেহায়া পুলিশ!!
বিকৃত আইন!! নির্লজ্জ জাতি!!
এদেশে বিচার হয় না!
টাকায়, ক্ষমতায় বিক্রি হয় আইন!
মা, তুমি ধর্ষিতা হও।
সম্মান জলাঞ্জলি দাও, জীবন দাও।
ধর্ষক সুখে থাক অতি!
কারন এ দেশেই আছে লোভী বিচারপতি!!
ধিক্কার তোমায় হে জাতি!
তুমি আজ ধর্ষিতা তৈরির কুলপতি।


হায় হায়!! একি ভুল করলাম!!
ধর্ষিতা বলছি কেন!!
তুমি ধর্ষিতা নও
মা, তুমি মহামানব, তুমি দেবী।
আসুন ধর্ষণ প্রতিরোধ করি।
সবাই সমস্বর তুলি, একই সাথে বলি,
ধর্ষিতা নও,
মা তুমি দেবী।




২২ আগস্ট ২০১৯,
আখন্দ ভিলা, মাদারীপুর পৌরসভা।

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ
নাজমুল তালুকদার
২৮-০৮-২০১৯ ২৩:১৯

.