আজ ২১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, শুক্রবার

মানবতার সন্ধানে
- এস আই তানভী

হে মানব জাতি, সু-সভ্যতা আর জ্ঞান- বিজ্ঞানের সূর্য সন্তানেরা;
এই অত্যাধুনিক স্বর্ণ যুগের অধিপতিগণ–
আজ কোথায় মানবিকতার বিবেক-বুদ্ধি?
হাজার হাজার মুসলমানকে জ্বালিয়ে দেয়া হচ্ছে,
ছুড়ে ফেলা হচ্ছে অবুঝ শিশুকে মায়ের কোল থেকে জ্বলন্ত আগুনে,
আর যারা বাঁচার জন্য ছুটছে---
নাবালক-সাবালক, নারী কিংবা পুরুষ, যুবক অথবা বৃদ্ধ–
তাদের পিছনে লেলিয়ে দেয়া হচ্ছে সামরিক শক্তি।

রাখাইন মুসলিমদের অপরাধ কি? কেন তাদের এই দূরাবনতি?
তারা মানুষ নয় শুধুমাত্র মুসলমান?
"মুসলমান" শব্দটা পাপ? জন্মটাই পাপ?
যদি কোন মুসলমান নিজেকে কিংবা তার অস্তিত্ব বাঁচাতে–
কাউ কে হত্যা করে বা কোন নূন্যতম অপরাধ করে, তবে
বিশ্ব-বিবেক তাদের 'জঙ্গি' বলে অভিযুক্ত করে, 'হিংস্র' বলে–
নড়েচড়ে বসে জাতিসংঘ, মিডিয়ার গতি বাড়ে, জ্ঞানী-গুণীজন
গোল টেবিলে বসার আয়োজন করে আর কবিদের কলমও
শ্রেষ্ঠ উপমা খুঁজে পায়-----।

এই তো চলমান এক ঘটনা– জন্মভূমির নাসিরনগর- ব্রাহ্মণবাড়িয়া,
সাঁওতাল আর বাঙ্গালি মুসলিমদের সংঘাত নিয়ে আমার প্রিয় স্যার,
প্রবীর চন্দ, তাঁর "গল্প নয় তবু গল্প" কবিতায় লিখেছেন-
"মতবাদের তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ; হায় নাসিরনগর ব্রাহ্মণবাড়িয়া ...
আজ আমাদের হাতে ভিজে যাওয়া কাপড়ের মতো স্যাঁতস্যাঁতে থেঁতলানো মাংসের দলা।
আজ আমাদের কাছে খিলজির ধারাল অস্ত্র
কোষমুক্ত তলোয়ার, ঘোড়ার খুঁড়ের মতো নির্মম শব্দ;"
তিনি সন্দেহ পোষণ করেছেন---- আমাদের সব কিছু কোন এক দিন
আরব্য রজনীর অন্ধকারে হারিয়ে যেতে পারে-------,
সব দোষ যদি মুসলমানদের হয় তবে ইরাক- আফগানিস্তান,
লিবিয়া- মিশর- সিরিয়া, কায়রো-আলেপ্পা আজ যে ধ্বংসিত
স্মৃতিমাত্র, বাবরী মসজিদ, গুজরাট এবং রাখাইন মুসলমানদের
এই পরিণতি কে করছে? এটা অমানবিক নয়? আজ কোথায়-
জাতিসংঘের সহননীতি? মিডিয়ার তৎপরতা? কোথায় বিশ্ব-বিবেক?
আজ কোথায় মানুষ? কোথায় তুমি অথবা আমি?
আমি বুঝি না 'হিন্দু-মুসলিম, বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান, ইহুদী-নাতসি' বুঝি না-
'পাঞ্জাবী-গুজরাটী' কিংবা 'বাঙ্গালি-সাঁওতাল'।

আমি বুঝতে চাই 'মানুষ, মানুষ এবং শুধুই মানুষ------।
--------------------
১৯/১১/১৬ইং

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ
এস আই তানভী
২০-১১-২০১৯ ১১:১০

আমি বুঝতে চাই 'মানুষ, মানুষ এবং শুধুই মানুষ------।