আজ ২৬ চৈত্র ১৪২৬, বৃহস্পতিবার

আমাদের নবীনগর
- এ কে সরকার শাওন - আপন-ছায়া

কাকের চোখের মত স্বচ্ছ,
টলমল জল নিয়ে চির প্রবাহমান
মেঘনা বিধৌত প্রকৃতির অনন্য বর,
তোমার আমার প্রানের নবীনগর।

তিতাসের অতি আদরের দুলালী
অপরূপা রূপসী কন্যা বিচিত্র নগর,
যেখানে প্রোথিত আমাদের শিকড়;
তোমার আমার হৃদয়ের নবীনগর!

তেপান্তরের মাঠ পেরিয়ে
শীতল ধারার নদী-খাল-বিল,
আকাশে বিচ্ছুরিত নীল অনাবিল!
সবুজ শ্যামলিমায় ঢাকা ছায়ানীড়,
দুরন্ত পল্লীমা অতি মনোহর,
জন্মান্তরের ভালবাসার নবীনগর!

কখনো সবুজের পর সবুজ মাঠে
দুরন্ত বাতাস সাথে নেচে নেচে বয়!
অগ্রহায়ণে বিস্তৃর্ণ সোনালী মাঠ দেখে
কৃষকের মুখে হাসি সম্ভাবনার কথা কয়!
মটর সরিষা ক্ষেতে চলে মৌমাছির গুঞ্জর,
চির সুজলা-সুফলা যার মাটি অতি উর্বর ;
সুখে দুখে আমাদের করেছে নিত্য স্বনির্ভর!
তোমার আমার আমাদের প্রিয় নবীনগর!

যখনই এ মাটির স্বর্ণধূলায় চুমি
উবে যায় সব দুঃখ-বেদনা-আক্ষেপ,
নিঃশ্বাসে প্রশান্তি মিলে জনমভর
তোমার আমার অস্তিত্ব নবীনগর!

পাখীর মত দেশে বিদেশে
উন্মুক্ত আকাশে ডানা মেলে ভেসে
উড়ে চলি স্বদেশের সীমা ছাড়িয়ে;
দূর দূরান্তে যে থাকি যতদূরে!
বিদেশ বিভূঁইয়ে যদি মেলে দেশের দোসর
এক পরিচয়ে হই আপনার আপন
জুড়িয়ে যায় সমস্ত বিদগ্ধ অন্তর;
বাড়ী যখন দু’জনারই আমাদের নবীনগর!

যে যেথায় যত দূরে থাকি
উৎসবে পার্বনে দেশে এসে
জড়িয়ে ধরে বলি কেমন আছোত?
ভাইরে, দেখা কতদিন পর!
যখন দুজনেরই বাড়ী আমাদের নবীনগর!

এই তো ঠিকানা বংশ পরম্পরায়
যেথায় নাড়ীর টান দুর্নিবার;
ফিরে আসি বারবার শতবার!
আমরা সমতটের পলিমাখা সন্তান দুর্মর,
তোমার আমার শতচেনা নবীনগর!

শাওনাজ, ঢাকা।
০৩.০২.২০২০

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ