আজ ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, বৃহস্পতিবার

পৃথিবীর দুর্গতি
- এ কে সরকার শাওন - চেয়ার ও চোর

করোনার ধাওয়ায় শ্রীমান
প্রাসাদে কোয়ারেন্টাইনে!
টাকার কুমির মহাত্ননের
খাবার রেডি গোডাউনে!

অফিস কলকারখানা
সবই তার চলছে ঠিকঠাক!
কাটা দিয়ে কাটা নিতে
শ্রীমান বেশ টিকটাক!

গুটি কয়েক পোষা চামচা
সদা ঘিরে থাকে তারে!
ভাইয়ের পেটে লাথি মেরে
বেঈমান চড়ে মিনারে!

গুগল থেকে চুরি করে
বাণী দিচ্ছে সকাল সাঝে!
সবাইকে মুর্খ মনে করে
নীজে পণ্ডিতম্মন্য সাজে!

কেউ কেউ নিমরাজি
কতক আছে মনোকষ্টে!
ইনসেন্টিভ দিলে পরে
এসে যাবে সব তুষ্টে!

বেচা বিক্রী অতি ভাল
দাম বাড়িয়েছে ত্বর-ত্বরে!
দশগুন বাড়িয়েও নাকি কম;
মেনে নিলেন দেশের তরে!

হাজার কোটির প্যাকেজের
ভাগ এসে যাবে পকেটে!
মহামারীতে ত্রিমুখী বানিজ্য
আসুক না কালে ঠাটে!

মনে শুধু দুঃখ একটা
পালাতে পারলো না অটোয়ায়!
কে জানতো সেই স্বর্গেও
থাবা দেবে করোনায়!

ঘরে বসে বোর হচ্ছে
এডাল্ট মুভিও বিরক্তিকর!
কই গেলি ফেলানী
ধর ধর পাকি টিভিটা ধর!

হোক যত মহা প্রয়োজন,
তবুও বাহিরে কেন অকারণ?
বাহির হওয়া মহা বারণ,
বেরোলে চামড়া ছিলা আচরন!

এইতো বিনোদন প্রোগ্রাম,
বাহিনীর ছক্কা কি দারুন লাগছে!
বাহ বাহ মারছে তো মারছেই
ধীমান ফুরফুরে স্বর্গসুখে ভাসছে!

সবচেয়ে সেরা মুভি
গরীব কাঙ্গালের পিঠে পিটুনি !
হাসতে হাসতে কাহিল
ধীমানেরও পেয়ে বসলো কাশুনি!

এ কাশির লক্ষণ ভাল নয়!
সে কি! নাকেও এসে গেছে পানি!
কপালে তাপ ও বেড়ে গেছে হায়!
এ তো করোনার হাতছানি!

বউ করে হায় হায়
এই নরক থেকে এখনই পালাই!
লাল্টু পল্টু গাড়ীতে ওঠ বাবা,
বাবার বাড়ীতে গিয়ে জানটা বাঁচাই!

আরে আরে যেও না, যেও না!
ফেলানী, তুইও চলে যাবি নাকি?
তোর পায়ে পড়ি যাসনে তুই
এবার ঠিক ঠিকই করিবো ঘরনি!

তুই ব্যাটা বেজন্মা কীট
তোর কথার নাই ঠিক!
সুযোগে সব কেড়ে নিলি
তোকে ধিক ধিক ধিক!

চেহারায় বেশ ভুষায়
তুই ভদ্দর লোক অতি;
ভিতরে ভিতরে রাক্ষস
তুই পৃথিবীর দুর্গতি!

অবশেষে থুতু একদলা
ছিটালাম তোর ভালে;
থুতুর চিহ্ন জ্বলজ্বল
হয়ে জ্বলবে চিরকালে!

দেখো চলছে কি কারবার,
লকডাউনে মহিলা ড্রাইভার!
সিনা টাইট করে বলে
এই, কেন গাড়ী থামালে এবার?

জানিস তুই, আমি কে?
শোবানা হাক্স লোকে বলে!
ছাড়্ ছাড়্ পথ ছাড়্
না হয় পাঠাবো জেলে!

তুই কোন পঙ্গপাল না মহিপাল,
চেনা-চেনি নাই, আইন সবার সমান!
তিন মায়ে পুতে খেল রাম ধোলাই
দর্পচূর্ণ হবেই, বলে বিধির বিধান!

ওয়াশরুমে কাপন্ত শ্রীমান
ওঠার সাধ্য নাই তার!
মানুষ ঠকিয়ে যে মহারথী,
কেউ পাশে নেই আর!

অতি সামান্য করোনা
যা চোখে দেখা যায় না!
তার কাছে ধরাশায়ী
এ কালের শ্রীমান হয়েনা!

পিশাচের শেষ পরিনতি
মানুষের জন্য মহা শিক্ষা!
ধন জন কেউ কারো নয়
ভুলে না যাই অমর দীক্ষা!

একালের ধনী কারুন ওরা
শেয়ালে খাবে ওদের সম্পদ!
ওরা বিধাতার শ্রেষ্ঠ আভিশাপ,
কোটি কোটি মানুষের আপদ!

ওরা যাক নরকের চুলোয়
যেমন কর্ম তেমন ফলে!
এসো মিলে মিশে সবে বাঁচি
একই ধরনী মায়ের অাচঁলে!

সুদৃঢ় করি মোরা সাম্যের বন্ধন,
মানুষকে ভালবাসি মমতায়!
একই আল্লাহর সৃষ্টি সবাই
পরিত্রাণ মাগি প্রতি প্রার্থনায়!

শাওনাজ, ঢাকা!
২৬.০৩.২০২০

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ
ফয়জুল মহী
২৬-০৩-২০২০ ০৪:৫৭

নিজে সচেতন হই। অন্যকে সচেতন করি।