হাসন স্মৃতি (সমস্তকবিতা)
- মাহমুদুল মান্নান তারিফ - সোনালিকবিতা ১৩-০৭-২০২৪

হাসন স্মৃতি (সমস্ত কবিতা)
মাহমুদুল মান্নান তারিফ
০১.
সুনামগঞ্জের তেঘরিয়া সাহেববাজার ঘাটে,
হাসন শিশু মায়ের কোলে এল রুপার খাটে।
লালটুকটুক তাঁর চেহারা আলো করল বাড়ি,
আত্মীয়রা দেখতে এল রিজার্ভ করেই গাড়ি।
০২.
কেউ বলেছে এ শিশুটার ভাগ্য খুবই ভালো,
খুব অচিরে রাজা হবে জ্বালব দেশে আলো।
কেউ বলেছে সাধক হবে কেউ বলেছে কবি,
শেষ ফলাফল এ শিশুটাই হল এমন সবই।
০৩.
গান-মরমি তাঁরই কণ্ঠে, হাতের বাঁশি বাজে,
সুফিবাদি রাজা হাসন তাঁর গানে মন সাজে,
দেখতে গেলাম কুড়ি সালে স্মৃতিগুচ্ছ তাঁর,
হাসন রাজার বাড়িখানা দেখতে চমৎকার!
০৪.
আয়নায় রাখা তাঁর কবিতা হস্তলিপি চমক!
থাকত যদি রাজা হাসন দেখলে দিত ধমক!
তাঁর বাড়িতে আমরা কজন হয়ত খুশি হতো,
ইচ্ছে করে পৌঁছে দিত আবার জায়গা মতো!
০৫.
তাঁর যাদুঘর ভাঙা বেড়ার সেসময়কার দেখা,
শুনছি এখন সজ্জিত বেশ, হয় একথা লেখা!
স্মৃতিগল্প কি আর বলব দেখছি গায়ের কোট,
সকল রাজার সেরা ছিল ভোটতো প্রচুর ভোট।
০৬.
দেখছি তাঁরই খুবধারালো হাতের লম্বা অসি,
পায়ের জুতা মাথার পাগড়ি চমকলাগা মসি।
ওয়ালের মধ্যে খোদাই করা তাঁর নমুনা ছবি,
ছড়ল খ্যাতি হাসন শিশুর, হাসন অমর কবি।
০৭.
তাঁর বিকল্প পাইনা খোঁজে বঙ্গদেশে আছে!
থাকলে সাধু দাওনা বলে যাব তাঁরই কাছে।
আমারতো খুব মনেপড়ে হাসনরাজার স্মৃতি,
শুনলে মনে অবাক লাগে রাজার কাব্যপ্রীতি।
০৮.
সুরমা পাড়ের বাড়িখানায় সুরমার বাড়ে মান,
প্রাণভরে এ ছড়া পড়েন, কী আর আড়ে চান!

রচনাঃ ০৪ মে ২০২০ ইং
স্থানঃ বিয়ানীবাজার, মাথিউরা, সিলেট।

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ

এখানে এপর্যন্ত 1টি মন্তব্য এসেছে।

MahmudulMannanTarif
১৮-০৫-২০২০ ২২:৩০ মিঃ

গান-মরমি=মরমি গান