আজ ৩ আষাঢ় ১৪২৬, রবিবার

ঐতিহাসিক মে দিবস
- অধ্যাপক আব্দুস সালাম

বিগত দিন হইলো বিলীন মহাকালের আবর্তে,
দাস প্রথা তো চালু ছিলো হয়নি বদল বিবর্তে।
২৪ঘন্টা একটানা শ্রম দিলেও মালিক তুষ্ট নয়,
শ্রমিকরা কি কলের মানুষ, রক্ত-মাংসের মানুষ নয়?
মালিক তো নয় মালেকুল মউত, মৃত্যু যেন মূর্তিমান,
খেটে খাওয়া মানুষগুলো কেমন করে বাঁচায় জান?
অহরহ যতোই রহো দম ফেলানো বিষম দায়,
এসব ভাবি’ তুললো দাবী, “জুলুম থেকে বাঁচতে চাই।”

জুটলো এসে অবশেষে দাবী-দাওয়ার মঞ্চেতে,
হাজার হাজার শ্রমিক মরে মালিক শ্রেণীর ঈর্ষাতে।
শ্রমিক মরে সিকাগো শহরে ঐতিহাসিক এই দিনে,
১লা মে-তে উঠলো মেতে শ্রমজীবি এই দুর্দিনে।
নির্ধারিত সময়-সীমায় পারিশ্রমিক ধার্য চায়,
মাস কাবারী মাস মাহিনায় সপরিবার বাঁচতে চায়।
১৮৮৬ সালে এ সব দাবী গ্রাহ্য হয়,
৮ ঘন্টা কাম করিয়া ন্যায্য মূল্য ধার্য হয়।

সভ্যতা সব উঠলো গ’ড়ে শ্রমজীবিদের ঘাম নিয়ে,
টাকার পাহাড় গড়ছে তাহার মিলমালিকের নাম দিয়ে।
জ্বীর্ণ-জ্বরা শ্রমিক তারা খাটবে কেন দিন-রাতে?
গড়ছে মালিক বিলাস ভবন, লাভ-ক্ষতি হয় কার তাতে?
গায়ের রক্ত পানি করে শ্রমজীবিরা ঘাম ঝরায়,
ঘাম শুকানোর আগেই যেন ন্যায্য ভাবে প্রাপ্য পায়।
সেদিন যাঁরা জান দিয়েছে তাদের তরে মাগফেরাত,
গায়েবানা হয় জানাজা করবো তাঁদের জিয়ারাত।
-----------------------------------------------------

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ