আজ ১ ভাদ্র ১৪২৯, মঙ্গলবার

জলতরঙ্গ
- জাহিদুল ইসলাম অনিক - আমার সময়

আমার সবি ছিলো ছোট একটা কুটিরে বন্দি
রোদ হোক, বৃষ্টি হোক,
বন্দিত কুটিরের দেয়াল খসে পরে না।

আজীবনের বড় স্বাদ,
কুটির থেকে দো-চালা ঘরের একটা বারান্দা।
যেখানে আমি আর আমার খেয়ালেরা,
অনুভূতিরা নতুনত্য পাবে।

আমি পাবো আমাকে
ওসব কবিতারা ছুঁবে হৃদয়
তবে পুরো ছোঁয়া বারন
কারন?জানি না।

আমার সবি ছিলো বইয়ের পাতায় থাকা,
সেই পুরনো ময়ূরীর পেখমের মতো।
ভুলে হোক বা নাহোক,
রেখে ছিলাম তাদের ছিলো যত।
হারাবে না।

আজীবনের স্বাদ দেখবো টিপটাপ বৃষ্টি তে পেখম মেলা ময়ূর। যেখানে হাত ঘড়ির সময় যায় যায়,
থাকবে না তারাহুরোর যত্তসব চিন্তা
এই জনমানবশূন্য যান্ত্রিক শহরে,
সময়ের কাছে জীবন এতই সস্তা?

হাতরে বেড়াই এপাশ ওপাশ
ধুলোমাটিতে ক্ষয় আমার দুই আনার সেন্ডেল জোড়া
কোথায় পাবো সেই জলতরঙ্গ?
কোথায় সেই শব্দ ঝরা ঝরা?

আমার সবি ছিলো জলছবিতে আঁকা,
পাখির ডানা মেঘে মেঘে আঁকাবাঁকা।
বাতাসে উড়ে উড়ে জলজোৎস্না মাখা,
বিষন্নতাহীন ।

আজীবনের স্বাদ গাঁ ভেজাবো গোধুলিবেলা
যেখানে মিষ্টি রোদ মাধুরী মিশানো ।
বিচ্ছেদি সব এক ধরনে অপরুপ অঙ্গ
যেনো বাজে সাত যন্ত্রের জলতরঙ্গ।

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ