আজ ৭ কার্তিক ১৪২৬, মঙ্গলবার

লোক শিল্প
- অধ্যাপক আব্দুস সালাম

কাদা ছেনে চাকে এনে ঘুরিয়ে কুমোর চাক,
থালা, বাটি, বদনা, ঘটি গড়তো লাখে লাখ।
নান্দা, কোলা বানাই জালা, দৈয়ের ছোবা, ভাঁড়,
মালসা-সানুক বানায় অনেক বানায় মাটির ষাঁঢ়।

মাটির পিদিম বানায় আরো বানায় জালের কাঠি,
এসব কিছু তৈরী হতো পুড়িয়ে কাদা-মাটি।
মাটির গেলাস, মাটির খোরা, মাটির হাঁড়া-হাঁড়ি,
এসব কিছু বানিয়ে কুমোর রাখতো কাঁড়ি কাঁড়ি।

তাঁতের শাড়ী বুনতো তাঁতী অনেক কালের নামি,
মসলিম শাড়ী ছিলো তখন সবার চেয়ে দামী।
নকশী-কাঁথা করতো সেলাই মা-বোনেরা তাই,
“নকশী কাঁথার মাঠে” এসে কাঁদতো যে রূপাই।

মন্তব্য যোগ করুন

কবিতাটির উপর আপনার মন্তব্য জানাতে লগইন করুন।

মন্তব্যসমূহ